Top 5 Eid Ul Adha 2019 Health Tips In Bangla

Top 5 Eid Ul Adha 2019 Health Tips In Bangla 

In the muslim religion the have tow most major festival which is eid ul fitr and eid ul adha and eid ul adha also called the festival of sacrifice and this eid celebrated in every year worldwide
and bangladesh too, bangladeshi people’s celebrate this eid by eating lot's of delicious food and most of the people didn’t control them to eating their favourite food and that's reason they get sick at the end of the day
Top 5 Eid Ul Adha 2019 Health Tips In Bangla
Top 5 Eid Ul Adha 2019 Health Tips In Bangla 
Eid Ul Adha কুরবানি ঈদ
মুসলমানদের সবচেয়ে বড় দুটি ধর্মীয় উৎসবের মধ্যে একটি হচ্ছে কুরবানির ঈদ অনেকে হয়তো জানে না যে এই ঈদের আরেকটি নাম আছে আর তা হল ঈদুজ্জোহা আর eid ul adha হচ্ছে আরবি শব্দ যার বাংলা হচ্ছে ত্যাগ করা এই দিনে মুসলিমরা ঈদগাহ এ গিয়ে ২ রাকাত ঈদের নামাজ পড়ে নামাজ শেষে যে যার সামর্থ অনুযায়ী গরু ছাগল উট কুরবানি দিয়ে থাকে।   

Eid Ul Adha Health Tips

১.খাবারের পরিমাপ
খাবার মানুষের শরীরকে যেমন সুস্থ রাখে তেমনি অতিরিক্ত খাবার মানুষকে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে ফেলে দেয় আর সাস্থ ঝুঁকি নিয়ে ঈদের আনন্দ করা যায় না তাই আপনাকে অবশ্যই খাবার খাওয়ার সময় তা পরিমীত খেতে হবে তাছাড়া ঈদের জন্য তৈরি খাবারে প্রচুর পরিমান ফ্যাট থাকে যা খুবই অসাস্থকর আবার থাকে ভিবিন্ন মিষ্টি জাতীয় খাবার যা শরীরের সুগার বৃদ্ধি করে যা একজন সুস্থ মানুষের জন্য যেমন ক্ষতিকর তার পাশাপাশি একজন ডায়বেটিস রোগীর জন্য আর বেশি ক্ষতি কর কিন্তু যেহেতু ঈদ তাই আমরা এ সকল খাবার খাবই তাই স্বাস্থ্য ঝুঁকি এরাতে খাবার পরিমীত পরিমান হতে হবে।             

২.তৈলাক্ত খাবার পরিহার
 Eid ul adha বা কুরবানি ঈদে মানুষ গরু ছাগল উট কুরবানি দেয় এবং এদের মাংস খায় এই সকল পশুর মাংসে থাকে প্রচুর চর্বি থাকে বিশেষ করে গরুর মাংসে বেশি থাকে তাছাড়া মাংস রান্না করতে যথেষ্ট তৈল ব্যবহার করা হয় তো সব মিলিয়ে তৈলের সমাহার কিন্তু আমার এসকল খাবার পরিহার করতে পারবো না কারণ আমরা সবাই অব্যস্থ তাই পরিহার করা না গেলেও তৈলাক্ত খাবার কম খাওয়ার চেষ্টা করা যেতে পারে এতে করে রক্তে চর্বি কম যুক্ত হবে এবং অতিরিক্ত রক্ত চাপের সম্ভবনাও কম থাকে তাই আমাদের উচিত যতটা সম্ভব তৈলাক্ত খাবার কম খাওয়া।                 

৩.কোমল পানীয় না খাওয়া
আমরা প্রতি ঈদেই ভাল মন্দ খাই যার মধ্যে অনেক তৈলাক্ত খাবারও থাকে যা খাবার পর আমাদের পেটে হয় গ্যাস ও বদহজম যা দূর করনে আমরা পান করি ভিবিন্ন ধরনের কোমল পানীয় যাতে থাকে প্রচুর পরিমানে কার্বোহাইড্রেট যদি কোন ব্যাক্তি প্রতিদিন এসক পানীয় পান করে তাহলে তার মুত্রথলি তে ক্যান্সার হওয়ার সম্ভবনা ৪০% থাকে তাছাড়াও এসকল পানীয় পানে হতে পারে খাবারের অরুচি ডিপ্রেশন হার্ট অ্যাটাক বন্ধ্যত্ব হতে পারে তাই আমাদের উচিত কোমল পানীয় পরিহার করা।           

৪.মসলাযুক্ত খাবার এর পরিমাপ
অতিরিক্ত মসলা মানুষের শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর এটা মানুষের পেটে বদহজমের সৃষ্টি করে পেটে গ্যাস তৈরি করে এবং বুকে জ্বালা পোড়া সৃষ্টি করে তাছাড়া যারা অতিরিক্ত যারা আলসার এর রোগী তাদের মসলাযুক্ত খাবার পরিহার করাই উচিত কারন তাদের মূলত পেটেই সমস্যা আর মসলা যেহেতু গ্যাস করে এতে তাদের সমস্যা আর বেরে যায় আবার যাদের শরীরে অতিরিক্ত মেদ তাদেরও ডাক্তাররা অতিরিক্ত মসলা খেতে বারন করে কারন অতিরিক্ত মসলা খেলে রক্তচাপ বেরে যেতে পারে তাই মসলাযুক্ত খাবার পরিমাপ মত খাওয়া।           

৫.জরুরি ওষুধ সজ্ঞে রাখা
ঈদের সময় অনেক ঘুরতে বেরহয় অনেকে অনেক দূরের পথ পাড়ি দেয় আবার অনেকে তাদের নিজেস্ব গ্রামের বাড়িতে যায় এ ধরনের ভ্রমণে অনেকের অতিরিক্ত বোমি হয় অনেকে মাথা গোরায় আবার শরীরে তাপমাত্রা সঠিক থাকে না তাই এ সকল অনাকাঙ্ক্ষিত বিপদ এরাতে সব সময় জরুরি ভাবে ওষুধ সজ্ঞে রাখা উচিত কিন্তু অবশ্য খেয়াল রাখতে হবে ওষুধ যেন ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী হয় কারন বাজারে ভালো মানের ওষুধ পাওয়া খুবই দায়।

আমাদের আর নতুন নতুন পোস্ট গুলো পেতে 🔔 বাটনে ক্লিক করে allow করে দিন ভাল লাগলে নিচের শেয়ার বাটনে ক্লিক করে শেয়ার করে দিন                 

Post a Comment

0 Comments